কভিড ধাক্কা কাটিয়ে জাহাজ ভাঙ্গায় আবারো শীর্ষে বাংলাদেশ

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

8 August, 2022

Views

কভিড ধাক্কা কাটিয়ে জাহাজ ভাঙ্গায় আবারো শীর্ষে উঠে এসেছে বাংলাদেশ।চলতি বছরের জানুয়ারি-জুন পর্যন্ত ছয়মাসের প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে বিশ্বে মোট জাহাজ ভাঙ্গা হয়েছে ৪৬২টি। এরমধ্যে ১৫৬টি জাহাজই ভাঙ্গা হয়েছে বাংলাদেশের শীপ ব্রেকিং ইয়ার্ডে। শতাংশের হিসাবে সেটি ৩৪ শতাংশ।

এনজি শীপ ব্রেকিং প্রকাশিত তালিকায় দেখা গেছে, তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আছে ভারত; সেই দেশ ভেঙ্গেছে ১২৪টি; শতাংশের হিসাবে ২৭ শতাংশ। তৃতীয়স্থানে থাকা পাকিস্তান ভেঙ্গেছে ৭২টি; শতাংশের হিসাবে সাড়ে ১৫ শতাংশ।চতুর্থস্থানে থাকা তুরস্ক ভেঙ্গেছে ৫৪টি; শতাংশের হিসাবে প্রায় পৌণে ১২ শতাংশ এবং ইউরোপীয় দেশগুলো সম্মিলিতভাবে ভেঙ্গেছে সাড়ে ১১ শতাংশ জাহাজ।

পিএইচপি শিপ ব্রেকিং রিসাইক্লিং ইয়ার্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জহিরুল ইসলাম রিংকু বলছেন, কভিড ধাক্কা কাটিয়ে বাংলাদেশ জাহাজ ভাঙ্গায় আগের অবস্থানে ফিরছে। মুলত দেশে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় জাহাজ আসা বেড়েছে; সেই কারণে ভাঙ্গাও।

তালিকা অনুযায়ী, ২০১৯ সালে বিশ্বের সর্বোচ্চ জাহাজ ভাঙ্গা হয়েছে বাংলাদেশে; জাহাজের সংখ্যা এবং ওজনের দিক থেকেও শীর্ষে ছিল বাংলাদেশ। জাহাজ ভাঙ্গার দিক থেকে বাংলাদেশ ২০১৭ ও ২০১৮ সালেও শীর্ষে ছিল। আর বাংলাদেশের প্রতিদ্বন্দ্বি ছিল ভারত। কিন্তু কভিড-১৯ মহামারির সময়ে এসে ২০২০ সালে ভারতের চেয়ে পিছিয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ। মাস যত গড়িয়েছে ভারতের সাথে বাংলাদেশের ব্যবধান ততই বেড়েছে। বছল শেষে ভারত ২০৩টি জাহাজ ভেঙ্গে শীর্ষে ছিল; আর বাংলাদেশ ১৪৪টি জাহাজ ভেঙ্গে দ্বিতীয় স্থানে ছিল। যদি জাহাজের সংখ্যার দিক থেকে কম জাহাজ ভেঙ্গে বেশি স্ক্র্যাপ পণ্য পেয়েছে বাংলাদেশ। অর্থ্যাৎ বাংলাদেশ তুলনামূলক বড় জাহাজ ভেঙ্গেছে।

কিন্তু ২০২১ সালের শুরু থেকে সেই ধাক্কা কাটিয়ে উঠেছে বাংলাদেশ। আগের মতোই শীর্ষস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। বছরের শুরুর প্রান্তিকে জানুয়ারি-মার্চ তিনমাসে বিশ্বে মোট জাহাজ ভাঙ্গা হয়েছে ২০৪টি। এরমধ্যে ৭৬টি ভেঙ্গেছে বাংলাদেশ। আর ভারত ভেঙ্গেছে ৫৫টি, পাকিস্তান ভেঙ্গেছে ৭২টি।

বিশ্বের অনেক দেশ জাহাজভাঙা থেকে সরে আসার মূল কারণ হলো পরিবেশদূষণ। সেসব দেশে ইস্পাতপণ্য তৈরির জন্য প্রাথমিক কাঁচামাল পুরোনো লোহার টুকরা বা মৌলিক কাঁচামাল আকরিকের ওপর নির্ভরশীল। তবে বাংলাদেশে রড তৈরির কারখানাগুলোতে এখনো কাঁচামালের একটা অংশ জোগান দেয় জাহাজভাঙা কারখানা। তাতেই শীর্ষ স্থানে উঠে এসেছে এই খাতটি। শীর্ষ স্থানে উঠে আসার পাশাপাশি দুর্ঘটনার হারও বেড়েছে বলে এনজিও শিপব্রেকিং প্ল্যাটফর্মের প্রতিবেদনে বলা হয়। প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী গত বছর ১০জন শ্রমিক দুর্ঘটনায় মারা যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.