২০ ফুট দীর্ঘ কন্টেইনারে পণ্যছাড় ডিপোতে খরচ ১৩৭৫৫ টাকা; বন্দরে ৭৯৩০ টাকা

বিশেষ প্রতিনিধি
আমদানিকৃত পোশাক শিল্পের কাঁচামাল জাহাজ থেকে নামিয়ে বেসরকারী কন্টেইনার ডিপোর পরিবর্তে সরাসরি চট্টগ্রাম বন্দর ইয়ার্ড থেকে খালাস করতে চায় গার্মেন্ট মালিকরা। এজন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে চিঠি লিখে ২৫ জুলাই থেকে চালু করা বর্তমান সিদ্ধান্ত বাতিল চায় গার্মেন্ট মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ।
দুই কারণে গার্মেন্ট মালিকরা সিদ্ধান্ত বাতিল করতে চায়। একটি হচ্ছে, বেসরকারী কন্টেইনার ডিপাে থেকে পণ্যছাড় সময়সাপেক্ষ; দ্বিতীয়ত, বেসরকারী ডিপােতে পণ্যরাখার খরচ অনেক বেশি।
জানতে চাইলে বিজিএমইএ প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম শিপিং এক্সপ্রেসকে বলেন, আমরা হিসাব কষে দেখেছি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে একটি ২০ ফুট দীর্ঘ কন্টেইনারভর্তি আমদানি পণ্য ছাড় নিতে খরচ হয় ৭ হাজার ৯৩০ টাকা; বিপরিতে বেসরকারী কন্টেইনার ডিপাে থেকে ছাড় নিতে খরচ হয় ১৩ হাজার ৭৫৫ টাকা। আর ৪০ ফুট দীর্ঘ কন্টেইনার অফডক থেকে ছাড় নিতে খরচ হয় ৯ হাজার ১৫০ টাকা; আর কন্টেইনার ডিপাে থেকে নিতে খরচ হয় ১৮ হাজার ৯২ টাকা। এটা মেনে নেয়া যায় না।
তিনি বলেন, বাড়তি খরচ ছাড়াও আমদানি পণ্যভর্তি একটি কন্টেইনার চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ছাড় নিতে ২ দিন সময় লাগে; বিপরিতে একই কন্টেইনার বেসরকারী কন্টেইনার ডিপাে থেকে ছাড় নিতে ৬/৭ দিন। পোশাক শিল্পের চ্যালেঞ্জিং এই সময়ে বাড়তি সময় ও ব্যয়ের এই বোঝা মানা যায় না। এজন্যই আমরা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে এই সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়েছি।
কন্টেইনার ডিপাে মালিকদের বিরুদ্ধে বাড়তি ভাড়া এবং দেরিতে পণ্যছাড়ের অভিযোগ দীর্ঘদিনের। মালিকরা কন্টেইনার ডিপাে গড়ে তুলেছেন ঠিকই কিন্তু অবকাঠামো গড়ে তুলেননি। আর প্রতি বছর যে হারে আমদানি-রপ্তানি পণ্য পরিবহন বাড়ছে তার সাথে আধুনিক যন্ত্রপাতি সংযোজন না করেই বিপুল কন্টেইনার করছে ডিপোগুলো। এসব অভিযোগের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়ার আগেই উচ্চমহলে দেনদরবার করেই শাস্তিমুলক পদক্ষেপ থেকে রেহাই পেয়ে যায় ডিপো মালিকরা।
বেসরকারী ১৮টি কন্টেইনার ডিপােতে এখন ৭৮ হাজার একক কন্টেইনার রাখার বিপরিতে গতকাল ছিল ৬১ হাজার একক। অর্থ্যাৎ জমজমাট ব্যবসা করছে ডিপোগুলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *