১৪ হাজার রপ্তানি কন্টেইনার ডিপোতে আটকা

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

8 August, 2022

Views

চট্টগ্রাম বন্দর ঘিরে বেসরকারী কন্টেইনার ডিপোতে ১৪ হাজার একক রপ্তানি কন্টেইনার জমে গেছে; যেগুলো ডিপো থেকে ট্রেইলরে করে সড়কপথে চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে নিয়ে জাহাজীকরণ করার কথা। স্বাভাবিক সময়ে ১৯ ডিপোতে রপ্তানি কন্টেইনার থাকে ৬ হাজার এককক; এখন দ্বিগুনের বেশি জমেছে। বেশি কন্টেইনার জমে থাকায় ডিপো থেকে রপ্তানি কন্টেইনার বন্দরে নেয়া যাচ্ছে না; আর কন্টেইনার না পৌঁছায় বাধ্য হয়েই সেটি না তুলেই বন্দর ছাড়ছে নির্ধারিত জাহাজ। এই অবস্থায় রপ্তানিকারক এবং বন্দর ব্যবহারকারীদের মধ্য উদ্বেগ ক্রমশ বাড়ছে।

কনটেইনার ডিপো সমিতির হিসাব অনুযায়ী, গতকাল বুধবার ১৯টি ডিপোতে বন্দর দিয়ে জাহাজে তুলে দেওয়ার অপেক্ষায় ছিল পণ্যবোঝাই ১৪ হাজার কনটেইনার। স্বাভাবিক সময়ে ডিপোর ভেতরে কম–বেশি রপ্তানি পণ্যবাহী ছয় হাজার কনটেইনার থাকে। অর্থাৎ স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় এখন কনটেইনারের সংখ্যা দ্বিগুণের বেশি রয়েছে ডিপোগুলোতে। এর বাইরে ডিপোগুলোর সামনে রপ্তানিমুখী পণ্য নিয়ে প্রায় ছয় হাজার কাভার্ড ভ্যান অপেক্ষা করছে।
মুলত ডিপোগুলোর সক্ষমতা পূর্ণ হয়ে যায়ায় এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। যেহারে রপ্তানি পণ্যের প্রবৃদ্ধি হচ্ছে সেহারে ডিপোর সক্ষমতা বাড়েনি আবার নতুন ডিপো গড়ে উঠেনি। এই কারণে এই জটিলতার তৈরী হয়েছে বরে স্বীকার করেন ডিপো মালিকদের সংগঠন বিকডা সচিব রুহুল আমিন সিকদার।

কনটেইনারে পণ্য রপ্তানির ৯৮ শতাংশ পরিবহন হয় চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে। বন্দর দিয়ে রপ্তানি হওয়া পণ্যের ৯০ শতাংশ বেসরকারি ডিপোতে কনটেইনারে বোঝাই করে জাহাজে তুলে দেওয়া হয়। বাকি ১০ শতাংশ ঢাকার কমলাপুর ডিপো বা আইসিডি এবং রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ অঞ্চল (ইপিজেড) থেকে কনটেইনারে বোঝাই করে সরাসরি বন্দর জেটিতে পাঠানো হয়। রপ্তানি পণ্যের সিংহভাগই পোশাক খাতের। ঈদ উপলক্ষে পোশাক খাতের রপ্তানিমুখী কারখানাগুলো এক সপ্তাহের বেশি বন্ধ থাকছে। ছুটির সময় যেসব পণ্য রপ্তানি হওয়ার কথা, সেগুলো ইতিমধ্যে চট্টগ্রামের ডিপোতে পাঠাতে শুরু করেছে রপ্তানিকারকেরা। তাতেই এই পণ্যজট বাড়তে শুরু করেছে।

পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর প্রথম সহসভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, ‘রপ্তানি যেভাবে বাড়ছে, তাতে বেসরকারি ডিপোগুলোর সক্ষমতা বাড়েনি। এ কারণেই ঈদের আগে রপ্তানি বাড়লে জট তৈরি হয়। অনেক ডিপোর সামনে ১০–১৫ দিন ধরে রপ্তানি পণ্য নিয়ে কাভার্ড ভ্যান খালাসের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছে। রপ্তানি পণ্য সময়মতো জাহাজে তুলে দেওয়া নিয়ে সংশয়ে আছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.