সেন্টমার্টিনস দ্বীপের কাছে ডুবলো মাছ ধরা ট্রলার ‘যানযাবিল’, দুর্ঘটনা নাকি অদক্ষতা?

0
485

বিশেষ প্রতিনিধি

সেন্টমার্টিনস দ্বীপ থেকে ৬৫ কিলোমিটার দুরে গভীর সাগরে একটি মাছ ধরা ট্রলার ‘এফভি যানযাবিল’ ডুবে গেছে। আজ শনিবার ভোর চারটায় মাছ ধরার সময় জাহাজটি ডুবে গেলে ঘটনাস্থলেই অনেকেই মৃত্যুবরন করেন। এখন পর্যন্ত চারজনের লাশ পাওয়া গেছে। আর জীবিত উদ্ধার হয়েছে ১৩ জন; নিখোঁজ রয়েছে আরও ৮ জন। নিখোঁজদের উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে নৌ বাহিনী ও কোস্টগার্ড।

উদ্ধার করা চার মৃতদেহের প্রাথমিক পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন, মোহাম্মদ ইসমাইল, নাসির উদ্দিন, সালাম গাজী ও শাহজাহান। তারা সবাই ট্রলারের সেইলর বা নাবিক ছিল। তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি; তবে সবাই নোয়াখালী ও বরিশালের বাসিন্দা বলে জানা গেছে। সনদবিহীন ও অদক্ষ নাবিক দিয়ে জাহাজ পরিচালনার কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। যদিও ট্রলার মালিক কর্তৃপক্ষ বলছে, ‘হঠাৎ বৈরী আবহাওয়ার’ কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

জানতে চাইলে আলী এন্ড ব্রাদার্সের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আলী বলেন, হঠাৎ করে বৈরী আবহওয়ার কারণে জাহাজটি কাত হয়ে ডুবে যায়। সাগরে তো বৈরী আবহাওয়া তো ছিল না উল্লেখ করলে তিনি বলেন, শীত মৌসুমে আচমকা কিছু ঝড়ো বাতাসের সৃষ্টি হওয়ায় দুর্ঘটনাটি ঘটে। অনভিজ্ঞ, সনদবিহীন মাস্টার দিয়ে জাহাজ পরিচালনার বিষয় তিনি অস্বীকার করে বলেন, বিষয়টি সত্য নয়।

এদিকে অদক্ষ নাবিক দিয়ে জাহাজ পরিচালনার কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ চট্টগ্রাম মেরিণ ফিশারিজ একাডেমি এক্স ক্যাডেট এসোসিয়েশনের। কারণ জাহাজটি ক্যাপ্টেনের ফিশিং ট্রলার চালানোর সনদ ও যোগ্যতা নেই। শুধু ‘এফভি যানযাবিল’ নয়; এই কম্পানির ১০টি জাহাজের কোন মাস্টারের ফিশিং ট্রলার চালানোর সনদ নেই। জানতে চাইলে চট্টগ্রাম মেরিণ ফিশারিজ একাডেমি এক্স ক্যাডেট এসোসিয়েশনের সভাপতি শামসুল ইসলাম রাশেদি বলেন, ‘আইন অনুযায়ী ফিশিং ট্রলার চালানোর জন্য কম্পিটেন্সি সনদ থাকা বাধ্যতামূলক কিন্তু ‘এফভি যানযাবিল’ মাস্টারের সেই সনদ নেই। শুধু তাই নয়; জাহাজটির মুল মালিক আলী এন্ড ব্রাদার্সের ১০টি জাহাজের নাবিকদের সেই যোগ্যতার সনদ নেই। অনভিজ্ঞ, প্রশিক্ষিত নাবিক ছাড়া জাহাজ চালানোর ফলে দুর্ঘটনা ঘটছে।

তিনি বলছেন, দক্ষ ও প্রশিক্ষিত মাস্টার দিয়ে এই ধরনের ট্রলার পরিচালনার জন্য আমরা অনেকদিন ধরেই আন্দোলন করছি। উদ্দেশ্য দুর্ঘটনা রোধ করে; সাগর যাত্রা নিরাপদ রাখা। আজকের ঘটনা প্রশাসনসহ সবাইকে আঙ্গুল দিয়ে বিষয়টি দেখিয়ে দিল। এরপরও যদি আমরা সতর্ক হই।

‘এফভি যানযাবিল’ জাহাজটির আলী এন্ড ব্রাদার্সের। যার মালিক চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী। ‘এফভি যানযাবিল’ জাহাজটিতে মোট ২৫ নাবিক ছিল। গত ২০ জানুয়ারি চট্টগ্রাম থেকে রওনা দিয়ে ট্রলারটি বঙ্গোপসাগরের সেন্টমার্টিনস দ্বীপের কাছে চিংড়ি মাছ ধরছিল। এই অবস্থায় দুর্ঘটনায় পড়ে ট্রলারটি কাত হয়ে ডুবে যায়। ঘটনাস্থলে থাকা কয়েকটি জাহাজ এগিয়ে গিয়ে ট্রলারে বেশ কজনকে জীবিত উদ্ধার করে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here