ব্যাংক ঋণের টাকায় কেনা মোরশেদ মুরাদের দুটি জাহাজই স্ক্র্যাপ হয়ে যাচ্ছে

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

20 October, 2021 0 Views

0

বিশেষ প্রতিনিধি
ব্যাংকের টাকা আত্নসাত করে পালিয়ে বেড়ানো মোরশেদ মুরাদ ইব্রাহিমের দুটি জাহাজই এখন অলস বসে থাকতে থাকতে অচল বা স্ক্র্যাপ হয়ে যাচ্ছে। ২০১৩ সালে দুটি জাহাজ কিনেছিলেন চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক এই সভাপতি এবং জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান। বেশ কবছর পণ্য পরিবহনের পর বেসিক ব্যাংকের টাকা আত্নসাতের বিষয়টি ধরা পড়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের তদন্তে পর পালিয়ে আছেন মোরশেদ মুরাদ। এরমধ্যে নাবিকদের বেতন না দেয়ায় উচ্চ আদালতের নির্দেশে  ‘ক্রিস্টাল সাফায়ার’  জাহাজ আটক হয়।  ‘ক্রিস্টাল গোল্ড’ নামের জাহাজটি ঘুর্নিঝড়ের আঘাতে সাগর থেকে উপকূলে গিয়ে আছড়ে পড়েছে; চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপকূলে থাকা জাহাজটি এখন পর্যটকদের বিনোদন যোগাচ্ছে ।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি থাকাকালে মোরশেদ মুরাদ ইব্রাহিম বেসিক ব্যাংকের ঋণ নিয়ে পুরনো দুটি জাহাজ কিনেন। জাহাজ দুটি হচ্ছে, ‘ক্রিস্টাল গোল্ড’ ও ‘ক্রিস্টাল সাফায়ার’। কেনার পর জাহাজ দুটি প্রথমে চট্টগ্রাম থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে পণ্য পরিবহন করে এরপর বিদেশের গন্তব্যে পণ্য পরিবহন করছিল। দেশে আসেনি জাহাজদুটি। কিছুদিন এভাবে চলার পর বেসিক ব্যাংকের কেলেঙ্কারি ফাঁস হলে মোরশেদ মুরাদের দুর্নীতিও ফাঁস হয়।  বেসিক ব্যাংক থেকে ৪৫০ কোটি টাকার ঋণখেলাপি হন তিনি ও তার পরিবার। এরপর থেকে ব্যবসা লাটে উঠে।

দুদকের তদন্তের পর মোরশেদ মুরাদ পালিয়ে গেলে ‘ক্রিস্টাল সাফায়ার’ জাহাজটির নাবিকরা দীর্ঘদিনের বকেয়া বেতনের দাবিতে উচ্চ আদালতে মামলা করেন। আদালত ২০১২ সালে জাহাজটি আটক করার নির্দেশ দেন। এরপর জাহাজটি বন্দরের বহির্নোঙরে সাগরে অলস বসে আছে। এই অবস্থায় থাকতে থাকতে জাহাজটি অচল হয়ে যাচ্ছে।

মোরশেদ মুরাদের আরেক জাহাজ ‘ক্রিস্টাল গোল্ড’ ঘুর্ণিঝড় মোরার আঘাতে সাগরে থেকে ছিটকে আনোয়ারা সমুদ্র উপকূলে চের আটকা পড়ে। দীর্ঘদিন আটকে থাকার পর জাহাজটি স্ক্র্যাপ হিসেবে নিলামে বিক্রির জন্য তোলা হয়। এতে ফোরস্টার নামক প্রতিষ্ঠান নিলামে পেয়ে জাহাজটি ভাঙতে যায়। কিন্তু পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি না নিয়ে জাহাজ ভাঙ্তে গেলে জরিমানা গুনে প্রতিষ্ঠানটি। এরপর থেকে সেই অবস্থায় জাহাজটি পড়ে আছে। এখন পর্যটকদের বিনোদন যোগাচ্ছে জাহাজটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *