বর্তমান বার্থ অপারেটর দিয়েই চলবে পতেঙ্গা টার্মিনাল

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

8 August, 2022

Views

চট্টগ্রাম বন্দরের বর্তমান বার্থ অপারেটররাই পতেঙ্গা কন্টেইনার টার্মিনালে (পিসিটি) পণ্য উঠানামার কাজ করবে। গ্লোবাল বা বিদেশি অপারেটর নিয়োগ না হওয়া পর্যন্ত এই ১২ জন বার্থ অপারেটরই সুবিধা ভোগ করবেন। আর দরপত্রে নির্বাচিত হওয়া ছাড়াই বন্দরের দাপ্তরিক আদেশে তারা কাজ পেয়ে যাচ্ছেন।
উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম বন্দরের নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত পিসিটি নির্মানকাজ পুরোপুরি শেষ। আগামী ২১ জুলাই সেই টার্মিনালের একটি জেটিতে খোলা পণ্যবাহি জাহাজ ভিড়িয়ে পরীক্ষামূলক পণ্য নামানোর কাজ শুরু হবে। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন সাপেক্ষে আগামী সেপ্টেম্বরে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে পিসিটি’র।
নির্মানকাজ শেষ হলে পিসিটির কোন জেটিতে যন্ত্রপাতি যুক্ত করা হয়নি। সরকারী সিদ্ধান্ত হচ্ছে, বিদেশে বন্দর পরিচালনায় অভিজ্ঞ অপারেটর দিয়ে পিসিটি পরিচালিত হবে। আর সেই প্রতিষ্ঠানই সব যন্ত্রপাতি নিজেদের খরচে কিনে পণ্য উঠানামায় যুক্ত হবে। সেই কাজটি সম্পন্ন হতে আরো এক থেকে দেড় বছর লাগবে। আর ততদিন পর্যন্ত এই বার্থ অপারেটররাই পণ্য উঠানামার কাজটি করবে। এখন প্রশ্ন উঠেছে দরপত্র ছাড়াই তারা কিভাবে কাজটি করবে?
এক শিপ হ্যান্ডলিং অপারেটর বলছেন, ১২ বার্থ অপারেটরদের এখন পোয়াবারো। তারা নির্বাচিত হয়েছে জনপ্রতি একটি বার্থ হিসেবে ১২ বার্থের জন্য। কিন্তু তারা এখন বন্দরের কর্ণফুলী ড্রাইডক, চট্টগ্রাম ড্রাইডক, টিএসপি জেটি বার্থ অপারেটর হিসেবে বাড়তি কাজ করছে। বাড়[তি মুনাফা লুফে নিচ্ছে। এখন পিসিটি কাজও পাবে। বন্দর শুধুমাত্র তাদেরকে এই কাজটি দিতে পারে কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

জানা গেছে, পিসিটি’র গ্লোবাল অপারেটর নিয়োগ এখনো অনেকদুর। সৌদি আরবের ‘রেড সী গেইটয়ে’ এবং দুবাইয়ের ‘ডিপি য়ার্ল্ড’ পিসিটি অপারেটর হয়ার প্রতিযোগিতায় এগিয়ে আছে। সেই চুড়ান্ত হতে অন্তত তিন থেকে চারমাস সময় লাগবে। এরপর দরপত্র ডেকে তাদের নির্বাচিত করতে আরো কয়েকমাস লাগবে। অপারেটর নিয়োগ চুড়ান্ত হয়ার পর যন্ত্রপাতি সংযোজন করতে আরো এক বছর সময় লাগবে। ফলে গ্লোবাল অপারেটর দিয়ে পিসিটি পরিচালনা অন্তত দেড়বছর সময় লাগবে। আর বার্থ অপারেটরদের কারসাজিতে যদি অপারেটর নিয়োগ বিলম্বিত হয় তাহলে ১২ অপারেটরদের সোনায় সোহাগা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.