পণ্য ডেলিভারির নতুন ইয়ার্ড চালু হচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দরে 

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

19 May, 2022

Views

পণ্য ডেলিভারির জন্য নতুন একটি ইয়ার্ড পাচ্ছেন চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারকারীরা। বন্দরের পুরনো ডক লেবার কলোনীর পাশে ‘নিউমুরিং ওভার ফ্লো কন্টেইনার ইয়ার্ড’ নামের এই ইয়ার্ড নির্মান করেছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। যেখানে ৪ হাজার গ্রাউন্ড ফ্লোরে চারস্তর করে রাখলে ১৬ হাজার একক কন্টেইনার রাখা যাবে। আগামী ২ জানুয়ারি নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী চট্টগ্রাম বন্দরে এসে আনুষ্ঠানিকভাবে এই ইয়ার্ডের উদ্বোধন করবেন। সেটি চালু হলে নিউমুরিং কন্টেইনার টার্মিনাল (এনিসিটি)  এবং চট্টগ্রাম কন্টেইনার টার্মিনাল (সিসিটি) থেকে যেসব কন্টেইনার ডেলিভারি দেয়া হতো সেগুলো নতুন ‘ওভার ফ্লো ইয়ার্ড’ থেকেই ডেলিভারি দেয়া হবে। বন্দর কর্তৃপক্ষ চাইছে ধীরে ধীরে ডেলিভারি ইয়ার্ডকে বন্দরের মুল জেটি থেকে বের করে আনতে। এতে বন্দরের মুল জেটির ওপর চাপ কমবে এবং এনসিটি-সিসিটিতে বাড়তি কন্টেইনার রাখা যাবে।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম. শাহজাহান বলেন, চট্টগ্রাম বন্দরের মুল জেটি-ইয়ার্ডের প্রত্যেক ইঞ্চি স্থান অনেক গুরুত্বপূর্ণ। অথচ এখানকার ইয়ার্ডে কন্টেইনার খুলে পণ্য ট্রাক-কাভার্ডভ্যানে বোঝাই করে ডেলিভারি দেয়া হয়। এই স্থান যদি আমরা শুধুমাত্র পণ্য নামিয়ে রাখার জন্য ব্যবহার করতে পারতাম তাহলে বন্দরের পরিচালন ব্যবস্থা আরো ভালো হতো।
তিনি বলেন, বন্দরের প্রধান জেটি-ইয়ার্ডের চাপ কমাতে এই উদ্যোগ। আমরা চাই ধীরে ধীরে ডেলিভারি পয়েন্টগুলো বে টামিনালে স্থানান্তর হবে। এতে বন্দরের পরিচালন কার্যক্রম আরো নির্বিঘ্ন হবে।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দরের পুরনো ডক লেবার কলোনীর পাশে সাড়ে ৩৪ একর জমির পর এই ‘নিউমুরিং ওভার ফ্লো কন্টেইনার ইয়ার্ড’  নির্মিত হয়েছে। ৪ হাজার গ্রাউন্ড ফ্লোরের এই স্থানে চার স্তর করে কন্টেইনার রাখলে ১৬ হাজার একক কন্টেইনার একসাথে রাখা যাবে। সেখানে এলসিএল কন্টেইনার ডেলিভারির জন্য একটি শেড নির্মিত হয়েছে। কন্টেইনার খুলে পণ্য ডেলিভারির পর খালি কন্টেইনার রাখার সুযোগ আছে এই ইয়ার্ডে। ১৮০ কোটি টাকার মতো খরচ হয়েছে সেটি নির্মান করতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.