ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত

0
1650

ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের ১৮তম ব্যাচ ও মাদারীপুর শাখার ৭ম ব্যাচ প্রশিক্ষণার্থী রেটিংসদের ১২/০৪/২০১৮ তারিখে প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী, জনাব শাজাহান খান, এম.পি.। অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ, ক্যাপ্টেন ফয়সাল আজিম। এ অনুষ্ঠানে দেশের সামরিক ও বেসামরিক গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, দেশী ও বিদেশী জাহাজ মালিক ও এজেন্টদের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি উল্লেখ করেন যে, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার নিমিত্তে দেশের সকল সেক্টর একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। সে প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ নিমণমধ্য আয়ের দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল (ডেভলপিং) দেশে পরিনত হতে চলছে। এরই অংশীদার হিসাবে শিপিং সেক্টরেও জাতীর জনকের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের নেতৃত্বে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। তাই শিপিং সেক্টরে দক্ষ মানব সম্পদ সৃষ্টির লক্ষ্যে ট্রেনিং ইন্সটিটিউটসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের ১৮তম ব্যাচ এবং মাদারীপুর শাখার ৭ম ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থী রেটিংসদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিনি আরো উল্লেখ করেন যে,  ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটে প্রী-সী ক্যাডেট কোর্স পরিচালনার অনুমতি প্রদান করেছে। এ ইন্সটিটিউটে সুদৃশ্য ৬ষ্ঠ তলা বিশিষ্ট শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল কমপেস্নক্স ও এডভান্স ফায়ার ফাইটিং বস্নক নির্মান করা হয়েছে। ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপকে সমৃদ্ধ করে আন্তর্জাতিক মানের উন্নীত করা হয়েছে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এবং সরকারিভাবে বিদেশে বাংলাদেশী নাবিকদের মার্কেটিং করার কারণে নৌ-বিশ্ব বাজারে নাবিকদের চাহিদা ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। যে সকল দেশে নাবিকদের ভিসা সমস্যা আছে, তা নিরসন করার জন্য সরকার  কাজ করছে। তিনি আশা করেন শীঘ্রই মধ্যপ্রাচ্যে ও সিংগাপুরে নাবিকদের ভিসা সমস্যা সমাধান করা সম্ভব হবে। মাননীয় মন্ত্রী উল্লেখ করেন যে, ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের ক্যাম্পাসে শিক্ষারর অনুকূল পরিবেশ বজায় রাখার এবং পুরাতন নাবিকদের সেবারমান বৃদ্ধির লক্ষ্যে সমঝোতার ভিত্তিতে বর্তমান ক্যাম্পাসের সীমানা নির্ধারণ করা হচ্ছে। পূর্বপার্শ্বে আলাদা একটি আন্তর্জাতিকমানের সীম্যান্স হোস্টেল নির্মাণ করা হবে। তাছাড়া  জরাজীর্ণ সীম্যান হোস্টেল ভবনের স্থানে ‘‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মেরিটাইম মিউজিয়াম’’ নির্মানের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

অধ্যক্ষ তাঁর বক্তব্যে মাননীয় প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথি বৃন্দকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন। তিনি মাননীয় মন্ত্রীর সার্বিক সহযোগীতায় গৃহিত উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের সংক্ষিপ্ত বিবরণ তুলে ধরেন। ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউট, মাদারীপুর শাখা চালু করা হয়েছে এবং স্থাপনাদি নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউট প্রতি বছর প্রী-সী কোর্সে ৬০০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদানের সক্ষমতা অর্জন করেছে এবং মাদারীপুর শাখার নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হলে প্রতি বছর মাদারীপুর শাখা হতে ৬০০ জনকে অর্থাৎ ২টি প্রতিষ্ঠান হতে বছরে সর্বোমোট ১২০০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা যাবে। যা হবে মেরিটাইম সেক্টরের জন্য একটি ইতিহাস। অত্যাধুনিক ফায়ার ফাইটিং ট্রেনিং ব্লক নির্মাণ করা হয়েছে; শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে; ই-টেন্ডারিং কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হয়েছে; ই-ফাইলিং কার্যক্রম বাস্তবায়নে মার্চ’২০১৮-এ নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন দপ্তর/সংস্থার মধ্যে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউট ১ম স্থান অধিকার করেন; অনলাইন পদ্ধতিতে প্রশিক্ষণার্থী ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে; অনলাইনে সার্টিফিকেট ভেরিফিকেশন করা হচ্ছে; ফিংগার প্রিন্ট ডিভাইসের মাধ্যমে কর্মচারীদের অফিসে হাজিরা নিশ্চিত করা হচ্ছে। ক্যাম্পাসের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য সিসি টিভি স্থাপন এবং ১০ জন আনসার নিয়োজিত করা হয়েছে; বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন কর্তৃক প্রদত্ত গোল্ড মেডেল প্রাপ্ত হন শ্রেষ্ঠ অল রাউন্ড রেটিং জনাব মোরশেদুল ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here