জট কমাতে জেটিতে বাড়তি কন্টেইনার জাহাজ ভিড়ার আবেদন

বিশেষ প্রতিনিধি

ঈদের আগে-পরে জাহাজজট কমাতে চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে বাড়তি কন্টেইনার জাহাজ ভিড়ানোর আবেদন জানিয়েছে বিজিএমইএ। এর আগে একই দাবি জানিয়েছিল বাংলাদেশ কন্টেইনার শিপিং এসোসিয়েশন। মুলত ঈদের ছুটিতে জাহাজজটের শঙ্কা করে আগেভাগেই জেটিতে বাড়তি কন্টেইনার জাহাজ ভিড়ানোর অনুমতি চেয়েছে সংগঠন দুটি।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ কন্টেইনার শিপিং এসোসিয়েশন এর সভাপতি ক্যাপ্টেন এ এস চৌধুরী বলেন, আমরা দেখছি স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় রমজানে কর্মঘন্টা কমে যাওয়া এবং লকডাউনে বন্দরের বাইরে পণ্য ডেলিভারি কম হওয়ায় জাহাজ ভিড়তে বাড়তি সময় লাগছে। এরফলে বহির্নােঙরে জাহাজের জট বাড়ছে। ঈদের ছুটিতে সেটি আরো দীর্ঘায়িত হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। এই অবস্থায় রমজানের আগে এবং পরের সপ্তাহে বাড়তি কন্টেইনার জাহাজ বন্দর জেটিতে ভিড়ার সুযোগ দিলে এই শ্ঙকা কমে যাবে। এজন্য আমরা লিখিতভাবে বিষয়টি বন্দর চেয়ারম্যানকে জানিয়েছি।

সেই চিঠির সূত্র ধরে গার্মেন্ট মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ গত ৫ মে চিঠি দিয়ে বন্দরের হস্তক্ষেপ চেয়েছে। চিঠিতে বিজিএমইএ সভাপতি বলেছেন, বর্তমানে বন্দর জেটিতে কন্টেইনার জাহাজ ভিড়তে বাড়তি সময় লাগছে। ঈদের ছুটিতে যাতে সেটি আর না বাড়ে সেজন্য বাড়তি কন্টেইনার জাহাজ জেটিতে ভিড়ানোর অনুরোধ করা হয়েছে।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দরের পরিবহন বিভাগের এক কর্মকর্তা বলছেন, কন্টেইনার জাহাজের জন্য বন্দর জেটিতে ১০টি জাহাজ বরাদ্দ থাকে। বাকিগুলো খোলা বা বাল্কজাহাজ। কিন্তু ইদানিং সরকারের খাদ্য আমদানির জাহাজকে অগ্রাধিকার দেয়া, মেগা প্রকল্পের পণ্যবাহি জাহাজকে অগ্রাধিকার দিতে গিয়ে কন্টেইনার জাহাজের কোটা একটু কমানো হয়েছে। অগ্রাধিকার তালিকার জাহাজ কমলে অবশ্যই কন্টেইনার জাহাজ বাড়তি বরাদ্দ দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *