চট্টগ্রাম বন্দর সিবিএ নির্বাচনের লক্ষন নেই; সময় আছে ১৪ দিন

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

7 December, 2021 16 Views

16

যুগ্ম শ্রম পরিচালকের নির্দেশনা অনুযায়ী চট্টগ্রাম বন্দর কর্মচারী পরিষদ (সিবিএ) নির্বাচন ৩০ অক্টোবরের মধ্যে শেষ করতে হবে। কিন্তু নির্বাচন আয়োজন করতে হাতে আছে মাত্র ১৪ দিন; এখন পর্যন্ত নির্বাচন আয়োজনের কোন লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না। ফলে ৩০ অক্টোবরের মধ্যে নির্বাচনের সম্ভাবনাই নেই।

এতে ক্ষুদ্ধ সিবিএ নেতা মেহেদি হাসান মজুমদার বলছেন, নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য হাতে আছে মাত্র ১৪ দিন। এখন পর্যন্ত বর্তমান সিবিএ নেতৃবৃন্দ নির্বাচন ঘিরে কোন মিটিং ডাকেনি। আলাপ-আলোচনা করেনি। ফলে ৩০ অক্টোবর সময়সীমার মধ্যে নির্বাচন আয়োজনের কোন লক্ষন দেখছি না। উপরন্তু মোঙলা বন্দরে সিবিএ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে ১৭ অক্টোবর চট্টগ্রাম বন্দরে অনুষ্ঠানে বাধা কোথায়?

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দর কর্মচারী পরিষদের (সিবিএ) নির্বাচিত কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে ২০১৯ সালের আগস্টে। ২৫ সদস্যের সেই কমিটির সভাপতি, সাধারন সম্পাদক, সহ-সভাপতিসহ অনেক নেতা ইতোমধ্যে অবসরে গেছেন। শুন্যপদে সভাপতি-সাধারন সম্পাদক দুইজনই অবৈধভাবে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে ২৫ মাস ক্ষমতায় আছেন। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির নির্বাচনের দাবিতে সিবিএ’র দুই যুগ্ম সম্পাদকের নেতৃত্বে কমিটির ৮ সদস্য পৃথকভাবে যুগ্ম শ্রম পরিচালকের দপ্তরে দ্রুত নির্বাচনের আবেদন করেন। আবেদনে বর্তমান কমিটির ভারপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে দায়িত্ব চালিয়ে যাওয়া, নেতাদের সেচ্ছাচারিতা-আর্থিক অনিয়মের অভিযোগও করা হয়।

এরপর সাধারন সদস্যের আবেদনের প্রেক্ষিতে ৪৫ দিনের মধ্যে গোপন ব্যালটে সাধারন নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সময়সীমা বেঁধে দেন চট্টগ্রাম যুগ্ম শ্রম পরিচালক ও রেজিস্ট্রার অব ট্রেড ইউনিয়ন্স। গত ১৬ সেপ্টেম্বর পাঠানো চিঠিতে চট্টগ্রাম বন্দর সিবিএ নির্বাচন বিলম্বের জন্য সমালোচনা করে দ্রুত নির্বাচনের লিখিত নির্দেশনা দিয়ে বলেন, অন্যথায় আইন আমলে আসবে।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম পরিচালক ও রেজিস্ট্রার অব ট্রেড ইউনিয়ন্স মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন কালের কণ্ঠকে বলেন, ৪৫ দিনের হিসেবে আগামী ৩০ অক্টোবরের মধ্যে সাধারন নির্বাচন অনুষ্ঠান গোপন ব্যালটে সম্পন্ন করতে হবে। এর ব্যতিক্রম হলে আইন তার নিজ গতিতে চলবে। ইতোমধ্যে নির্বাচনের তাগাদা দিয়ে সব দপ্তর এমনকি চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যানকেও দেয়া হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত নির্বাচন অনুষ্ঠানে কোন সাড়া মিলেনি।

জানতে চাইলে বন্দর কর্মচারী পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মেজবাহুল ইসলাম বলেন, একটি কমিটির দুই বছরের মেয়াদ পার হয়ে ২৫ মাস হয়ে গেছে। শ্রম দপ্তর থেকে নির্বাচন আয়োজেনর তাগাদা দেয়া হয়েছে। কিন্তু এক রহস্যজনক কারণে চট্টগ্রাম বন্দর কর্মচারী পরিষদের নির্বাচন দিচ্ছে না। এতে সাধারন সদস্যরা ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *