চট্টগ্রাম বন্দর থেকে পাঁনগাও যাওয়ার পথে সাগরে পড়ে গেছে ৪৩টি কন্টেইনার

0
1073

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম বন্দর থেকে সাগরপথে ঢাকায় যাওয়ার পথে একটি জাহাজ থেকে পণ্যভর্তি ৪৩টি কন্টেইনার সাগরে ছিটকে পড়ে গেছে। রবিবার সকাল সাড়ে আটটায় বঙ্গোপসাগরের হাতিয়া চ্যানেলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। ‘কেএসএল গ্ল্যাডিয়েটর’ জাহাজে থাকা সবগুলো কন্টেইনারেই বিদেশ থেকে আমদানিকৃত গার্মেন্ট শিল্পের কাঁচামাল, সুতা ও স্টিল কয়েল ছিল। নারায়নগঞ্জের আশপাশের কারখানার জন্য সেগুলো আনা হয়েছিল। জানতে চাইলে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) চট্টগ্রামের উপ পরিচালক মোহাম্মদ সেলিম বলেন, হাতিয়া চ্যানেলের অদূরে নোয়াখালীর ভাসানচর এলাকায় লাল বয়ার কাছে খারাপ আবহাওয়ার কবলে পড়ে জাহাজটি। এসময় জাহাজটি ব্যাপকভাবে দুলতে শুরু করে। এতে কনটেইনারগুলো বাঁধন ছিঁড়ে সাগরে পড়ে যায়। ভাসানচরে এখন অনেকগুলো কনটেইনার ভাসতে দেখা যাচ্ছে। তবে জাহাজ চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। জানা গেছে, করিম শিপিংয়ের মালিকানাধীন ‘কেএসএল গ্ল্যাডিয়েটর’ জাহাজটি ২৯ জুন দিবাগত রাত দেড়টার দিকে চট্টগ্রাম বন্দরের এনসিটি থেকে রওনা দিয়ে ঢাকার পানগাঁও এবং সামিট পোর্ট ইনল্যান্ড কন্টেইনার টার্মিনালের উদ্দেশে রওনা দেয়। জাহাজটিতে কনটেইনার ছিল মোট ৮৬টি। এর মধ্যে ৬৭টি কনটেইনার পানগাঁও সংলগ্ন সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেডের জেটিতে এবং বাকি ১৯ টি পানগাঁওতে নামানোর কথা ছিল। কিন্তু জাহাজটি বঙ্গোপসাগরে হাতিয়া চ্যানেলে পৌঁছার পর ৪৩টি কনটেইনার সাগরে পড়ে যায়।এ বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দরের সদস্য (প্রশাসন) জাফর আলম বলেন, ‘চট্টগ্রাম বন্দর জলসীমার বাইরে হওয়ায় এটি এখন আমাদের আওতার মধ্যে নেই। জাহাজটির পরিচালনা কর্তৃপক্ষ বেসরকারী কোন প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে এসব কন্টেইনার উদ্ধার করবে। এরপরও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছি আমরা।’  জানা গেছে, জাহাজ থেকে পানিতে পড়ে যাওয়া ৪৩ কন্টেইনারের মধ্যে তৈরী পোশাক শিল্পে ব্যবহারের জন্য আনা কাঁচামাল রয়েছে; এছাড়া বিভিন্ন কারখানার জন্য আনা স্টিল কয়েল সামগ্রীও রয়েছে। জাহাজটিতে ময়মনসিংহের ভালুকাতে অবস্থিত বাদশা টেক্সটাইলের জন্য আনা সুতার কন্টেইনার রয়েছে। জানতে চাইলে বাদশা টেক্সটাইলসের মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শাহীনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন মন্তব্য করেননি। অভিযোগ পাওয়া গেছে, জাহাজটিতে নির্মানজনিত ত্র“টি থাকায় সামান্য ঢেউয়ের তোড়ে চলতি পথেই উল্টে যায়। কারণ এখন সাগর এতটা উত্তাল নেই যে জাহাজ ডুবে যাবে।

  1. # ৩০ জুন ২০১৯

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here