চট্টগ্রাম বন্দর অচল করে ধর্মঘট কার স্বার্থে ?

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

25 September, 2022

Views

কোভিড মহামারী নিয়ে এখনো লড়াই করছে দেশের মানুষ। কভিড ধকল কাটিয়ে দেশের অর্থনীতি সচল করতে আপ্রাণ চেষ্টা করছেন ব্যবসায়ীরা। ঠিক এই সময়ে এসে ধর্মঘট ডাকলো ট্রাক-কাভার্ডভ্যান-লরি মালিক শ্রমিকরা। মুল সংগঠন বাদ দিয়ে একটি সংগঠনের নামে ডেকে বসলো ধর্মঘট। শুধু একটি বন্দর নয়; দেশের সব স্থলবন্দর-সমুদ্রবন্দর অচল করে দিলো। এখন প্রশ্ন উঠেছে হঠাৎ কী এমন ঘটলো যে দেশজুড়ে বন্দর অচলের মতো কর্মসূচি দিলেন নেতারা?

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলছেন, অর্থনীতি অচল করে দিয়ে কার স্বার্থে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা ধর্মঘট ডেকে বসলেন তা আমার বোধগম্য নয়। কভিড ধাক্কা সামাল দিয়ে দেশ বাঁচাতে ব্যবসায়ীরা প্রাণপনে চেষ্টা করছেন অর্থনীতিতে গতি আনতে। সাধারন মানুষ জীবন-জীবিকা বাঁচাতে কভিড মহামারির মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে মাঠে নেমেছে। এই সময়ে সহযােগিতা না করে উল্টো ধর্মঘট ডেকে বসলেন ব্যবসায়ীরা। এটা অন্যায় মানার মতো নয়।

জানা গেছে, দেশের আমদানি-রপ্তানির ৯২ শতাংশই চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর দিয়ে সম্পন্ন হয়। ফলে চট্টগ্রাম বন্দর এক ঘন্টার জন্য বন্ধ থাকা মানেই দেশের সামগ্রিক অর্থনীতির জন্যই ক্ষতির। এই আর্থিক ক্ষতির বোঝা পুরো দেশকেই টানতে হবে।

চট্টগ্রাম বন্দরের এক টার্মিনাল অপারেটর বলছেন, দিনে বেসরকারী কন্টেইনার ডিপাে থেকে ২ হাজার একক রপ্তানি পণ্যভর্তি কন্টেইনার জেটিতে যায়। ধর্মঘটের কারণে আজ মঙ্গলবার কোন কন্টেইনারই জেটিতে যায়নি। রপ্তানি কন্টেইনার না আসায় বুধবার যে জাহাজটি ছাড়ার কথা সেটি বিলম্বিত হবে। আবার শিডিউল ঠিক রাখতে গেলে রপ্তানি কন্টেইনার না নিয়েই জাহাজ বন্দর জেটি ছাড়তে হবে। ফলে জাহাজজট স্বাভাবিক হয়ে আসাই চট্টগ্রাম বন্দর আবারো জটে পড়বে।

চট্টগ্রাম বন্দর সচিব ওমর ফারুক বলছেন, বন্দর কর্তৃপক্ষ সম্পূর্ণ প্রস্তুত। কিন্তু ধর্মঘটের কারণে গাড়ি না চললে আমরা কী করবো। কভিডের এই সময়ে এই ধরনের ধর্মঘট অনভিপ্রেত।

চট্টগ্রাম বন্দরকে টার্গেট করেই ধর্মঘট ডেকেছে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা। কারণ বন্দর অচল করতে পারলেই তাদের উদ্দেশ্য সফল। ফলে এবারো আন্দোলন, মিছিল, মিটিং সবকিছুই চট্টগ্রাম বন্দর ঘিরেই ছিল।

কিন্তু ঠিক কী কারণে এই ধর্মঘট তার সদুত্তর দিতে পারেননি পরিবহন নেতারা। ১৫ দফা যে দাবির কথা বলছেন, সেগুলো এমন নয় যে কয়েক মাসের মধ্যেই সেগুলোর সৃষ্টি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.