চট্টগ্রাম বন্দরে আটক হলো কন্টেইনার জাহাজ কোটা আঙ্গেরিক

বিপুল রপ্তানি পণ্য রয়েছে জাহাজে

0
1524

বিশেষ প্রতিনিধি
চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পণ্যসহ আটক হয়েছে এক বিদেশি কন্টেইনার জাহাজ। সিঙ্গাপুরের পতাকাবাহি জাহাজ ‘কোটা আঙ্গেরিক’ সিঙ্গাপুর বন্দর থেকে গত ৭ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম বন্দরের ৯ নম্বর জেটিতে ভিড়ে। আমদানি পণ্য নামিয়ে জাহাজে রপ্তানি পণ্য বোঝাই করে রওনা দেয়ার কথা ছিল আজ ১০ সেপ্টেম্বর। তার আগেই জাহাজটি আটক করেছে নৌ বাণিজ্য অধিদপ্তর।এই অবস্থায় রপ্তানি পণ্য নিয়ে জাহাজটি চট্টগ্রাম বন্দরে আটকা পড়েছে।
অভিযোগ রয়েছে, জাহাজ মালিকের কাছ থেকে বিপুল অংকের টাকা বকেয়া রয়েছে জাহাজ মেরামতাকারী বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান ‌কজ মেরিন’ এর। বকেয়া আদায়ে উচ্চ আদালতে মামলার প্রেক্ষিতেই ‘কোটা আঙ্গেরিক’ জাহাজটি আটক করা হয়েছে।
আটকের বিষয়টি স্বীকার করে চট্টগ্রাম বন্দরের ডেপুটি কনজারভেটর ক্যাপ্টেন ফরিদুল আলম শিপিং এক্সপ্রেসকে বলেন, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা জাহাজটি আটক করেছি। এখন জেটি থেকে জাহাজটি বহির্নোঙরে পাঠিয়ে দেয়া হবে। সেখানে কোস্ট গার্ড, নৌ বাহিনী এবং বন্দরের নিরাপত্তা বিভাগকে জাহাজটি আটকে রাখার বিষয়টি তদারকি করবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সেটি আটকে থাকবে।
জানা গেছে, ২১ বছর বয়সী ‘কোটা আঙ্গেরিক’ জাহাজটি সিঙ্গাপুর বন্দর থেকে রওনা দিয়ে ৬ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে পৌঁছে। পরদিন ৭ সেপ্টেম্বর জাহাজটি ৮৮৯ একক কন্টেইনার আমদানি পণ্য নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের সাধারন কন্টেইনার বার্থের ৯ নম্বর জেটিতে ভিড়ে।পণ্য নামানোর একদিন পর জাহাজটি রপ্তানি পণ্য বোঝাই করে আজ বৃহষ্পতিবার চট্টগ্রাম বন্দর ছেড়ে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই জাহাজটি আটক করা হয়।
জানতে চাইলে জাহাজটির শিপিং এজেন্ট পিআইএল বাংলাদেশের মহাব্যবস্থাপক আবদুল্লাহ জহীর শিপিং এক্সপ্রেসকে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।
তবে জানা গেছে, আটকের বিষয়ে উচ্চ আদালতে রীট মামলা করে স্থগিতাদেশ নিয়েছে পিআইএল বাংলাদেশ। কিন্তু সেই আদেশ চট্টগ্রাম বন্দর ও নৌ বাণিজ্য অধিদপ্তরে পৌঁছতে দু একদিন সময় লাগবে। এর মধ্যে জাহাজটি বন্দর জেটি থেকে বহির্নোঙরে গিয়ে অপেক্ষায় থাকবে। অফিসিয়াল আদালতের আদেশ পেলে নৌ বানিজ্য দপ্তরের অনুমতি নিয়েই বন্দর ছাড়তে পারবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here