চট্টগ্রাম থেকে বরিশাল পৌঁছতে এমভি তাজউদ্দিনের সময় লাগল ২০ ঘন্টা

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

8 August, 2022

Views

পরীক্ষামূলক যাত্রায় যাত্রীবাহী জাহাজে চট্টগ্রাম-বরিশাল পৌঁছতে সময় লেগেছে প্রায় ২০ ঘন্টা। স্বাভাবিক সময়ে এই পথ পাড়ি দিতে ১২ ঘন্টা লাগার কথা থাকলেও ঘাটে ঘাটে ভোগান্তি অব্যবস্থাপনার পর শেষ পর্যন্ত ২০ ঘন্টা সময় লাগল। সরকারী জাহাজ ‘এমভি তাজউদ্দিন’ এর পরীক্ষামূলক যাত্রায় এই সময় লেগেছে। গত বৃহস্পতিবার সকালে সাড়ে ৯টায় চট্টগ্রাম থেকে ছাড়ার প্রায় ২০ ঘণ্টা পর শুক্রবার ভোর ৫ টায় বরিশালে পৌঁছে জাহাজ তাজউদ্দিন।

বিলম্ব হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে বিআইডব্লিউটিএ’র মহাব্যবস্থাপক গোপাল মজুমদার বলেন, হাতিয়া ঘাটে যাত্রী ওঠানামায় দেরি হয়েছে। এছাড়া ভোলার ইলিশা ঘাটের ভাটিতে চর গজারিয়ার মেঘনায় নাব্য সংকটে দুই দফায় প্রায় ৪ ঘণ্টা জাহাজ নোঙ্গর করে রাখতে হয়েছে। ৪০ মিনিট পর চট্টগ্রাম থেকে জাহাজ ছাড়ে। এসব বিষয় হিসাব করলে পৌনে ৩শ কিলোমিটার পথ পেরুতে জাহাজের সময় লেগেছে ১৪ ঘণ্টার সামান্য বেশি।

বাড়তি সময় লাগার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটি ছিল ট্রায়াল রান। প্রথম যাত্রায় ক্যাপ্টেনসহ অন্যসব ক্র খুব সাবধানে জাহাজ চালিয়েছেন। এছাড়া আমরা কোনো তাড়াহুড়ো করিনি। পথের নানা সমস্যা ও সুবিধা-অসুবিধার বিষয়গুলোর দিকেও খেয়াল রাখতে হয়েছে আমাদের। যাতে পূর্ণমাত্রায় সার্ভিসটি শুরু হলে যাত্রীদের কোনো রকম জটিলতা না হয়।

উল্লেখ্য এখন যে জাহাজটি চলছে সেটি ৪৬ বছর আগে পশ্চিম জার্মানি থেকে সংগ্রহ করা। পুরনো জাহাজের নানা জটিলতা আর জাহাজ সংকটে ২০১০ সালে জনপ্রিয় চট্টগ্রাম-হাতিয়া-সন্দ্বীপ-বরিশাল রুটটি বন্ধ হয়ে যায়। এরপর চট্টগ্রাম-বরিশাল জাহাজ সার্ভিস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চট্টগ্রামে যাওয়ার ক্ষেত্রে চরম বিপাকে পড়েন দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ। ঢাকা অথবা চাঁদপুর হয়ে চট্টগ্রাম যেতে সময় লাগছে দেড় থেকে দু’দিন। শরীয়তপুরের হরিণা এবং ভোলার ইলিশা ফেরি পার হয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রেও লাগছে ১৮ থেকে ২০ ঘণ্টা সময়। এছাড়া বারবার যানবাহন বদল করায় মানুষকে দুর্ভোগও পোহাতে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.