চট্টগ্রাম ঘুরে গেলেন মার্কস (Mearsk) গ্রুপের সিইও

0
2874
  1. বিশ্বের শীর্ষস্থানী শিপিং কোম্পানি মার্কস লাইনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সোরেন স্কও চট্টগ্রাম ঘুরে গেলেন। বাংলাদেশে কোনো শীর্ষস্থানীয় শিপিং কোম্পানির প্রধান নির্বাহীর এটি প্রথম সফর। মার্কস লাইন সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত সাড়ে আটটায় নীল রংয়ের করপোরেট জেট বিমানে চড়ে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন সোরেন স্কও। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন এই অঞ্চলের মার্কস গ্রুপের কর্মকর্তারা। বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশে মার্কস লাইনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন তিনি।
    একাধিক সূত্র জানায়, সকাল ১১ টায় তিনি কাট্টলীতে অবস্থিত বেসরকারি কনটেইনার ডিপো ইস্পাহানি সামিট অ্যালায়েন্স টার্মিনালস লিমিটেড পরিদর্শন করেন। ডিপোটিতে রপ্তানি পণ্য ব্যবস্থাপনার পুরো কার্যক্রম সরেজমিন প্রত্যক্ষ করেন তিনি। এরপর ডিপোটির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতিবিনময় করেন।
    বৈঠক সূত্রে জানা গেছে,মতবিনিময়ের সময় সোরেন স্কও ডিপোর রপ্তানি পণ্যের ব্যবস্থাপনা নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। ডিপোটির ওয়্যারহাউজ ব্যবস্থাপনা আন্তর্জাতিকমানের বলে মত দেন তিনি।
    নিদির্ষ্ট একটি ডিপোতে পরিদর্শনের কারণ জানতে চাইলে ইস্পাহানি সামিট অ্যালায়েন্স টার্মিনালস লিমিটেডের একজন কর্মকর্তা জানান, ডিপোটিতে  লাইনের সহযোগী সংস্থা ডেমকো’র মাধ্যমে যেসব পণ্য রপ্তানি হবে সেগুলো ব্যবস্থাপনার জন্য কয়েকটি শেড রয়েছে। এজন্যই এই ডিপোটি ঘুরে দেখেছেন তিনি।ডেমকো হলে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার প্রতিষ্ঠান, যারা ডিপোতে রপ্তানিকারকের হাত থেকে পণ্য বুঝে নিয়ে বিদেশি ক্রেতাদের গন্তব্যস্থলে পৌঁছে দেয়।
    জানা গেছে, বিকেল চারটার দিকে মার্কস লাইনের নিজস্ব বিমানে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম ত্যাগ করেন তিনি।
    শীর্ষস্থানীয় শিপিং কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহীর বাংলাদেশ সফর নিয়ে মার্কস লাইনের বাংলাদেশ কার্যালয়ের কোনো কর্মকর্তা কথা বলতে রাজি হননি। নাম প্রকাশ না করে একজন কর্মকর্তা জানান, মূলত এই অঞ্চল পরিদর্শনের অংশ হিসেবে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বাংলাদেশে এসেছেন। ইতোমধ্যে ভারতও সফর করেছেন তিনি। বাংলাদেশ থেকে সিঙ্গাপুরে গেছেন।
    ওই কর্মকর্তা জানান, বুধবার চট্টগ্রামে এসে সরাসরি নগরের রেডিসন ব্লু হোটেলে বিশ্রাম নেন। বৃহস্পতিবার ইস্পাহানি–সামিটের ডিপো ছাড়াও কোরিয়ান ইপিজেডে তার যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে তিনি কেইপিজেডে তার সফর বাতিল করেন।
    জানা গেছে, সফরের সময় সোরেন স্কও আগ্রাবাদে মায়ের্সক লাইনের কার্যালয়ে যাননি। তিনি বৃহস্পতিবার সকালেই রেডিসন ব্লু হোটেলেই কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
    এ বিষয়ে শিপিং এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালক খায়রুল আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলাদেশে শিপিং ও লজিস্টিকস খাতে ব্যবসা প্রসারের সম্ভাবনা থেকে এখন বিদেশি কোম্পানিগুলোর চোখ বাংলাদেশের দিকে রয়েছে। এ জন্য এখন বড় বড় নির্বাহীরা বাংলাদেশ সফর করছেন।
    বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় শিপিং কোম্পানি  মার্কস লাইনের সদর দপ্তর ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে। কোম্পানিটি পরিবহন ও লজিস্টকসসহ বহু খাতে ব্যবসা থাকলেও বাংলাদেশে শুধু কনটেইনার পরিবহন, জাহাজ পরিচালনা, ফ্রেইট ফরোয়ার্ডিং ব্যবসা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here