চট্টগ্রাম-কলম্বো রুটে নতুন চারটি কন্টেইনার জাহাজ পরিচালনার অনুমোদন দিল বন্দর

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

25 October, 2021 0 Views

0

বিশেষ প্রতিনিধি
চট্টগ্রাম-কলম্বো রুটে পণ্য পরিবহনের জন্য চারটি নতুন কন্টেইনার জাহাজ পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। গত সোমবার শিপিং লাইন এবং বন্দর ব্যবহারকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে বৈঠকের পর বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম. শাহজাহান এই রুটে নতুন জাহাজ পরিচালনার আবেদন করলে দ্রুত অনুমোদনের কথা জানান। সেই সিদ্ধান্তের পরদিনই চারটি জাহাজ পরিচালনার অনুমতি এলো। চারটি জাহাজের পণ্য পরিবহন সক্ষমতা ৫ হাজার একক কন্টেইনারের বেশি।
চারটি জাহাজের দুটি হচ্ছে মেডিটেরানিয়ান শিপিং কম্পানি (এমএসসি), এমএসসির দুটি জাহাজ হচ্ছে, ‌’ওইএল ইন্ডিয়া’, ও ‘হারম্যান স্কেপার’। বাকি দুটি জাহাজ হচ্ছে এভারবেস্ট শিপিং লাইন; জাহাজের নাম ‘মিনিয়ন’ ও ‘কন্টশিপ লেক্স’।
জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দর পরিচালক (পরিবহন) এনামুল করিম শিপিং এক্সপ্রেসকে বলেন, চেয়ারম্যান মহোদয় নতুন জাহাজ পরিচালনা অনুমতির ঘোষনার পরপরই গতকাল সোমবার দুটি জাহাজ এবং আজ মঙ্গলবার আরো দুটি জাহাজের অনুমোদন দিয়েছি।  সেগুলো দ্রুত পরিচালনা শুরু করবে। অনুমোদন পাওয়া জাহাজগুলো কোন রিপ্লেসমেন্ট নয়; তিনটি জাহাজই নতুন সার্ভিস হিসেবে পরিচালিত হবে।
তিনি বলেন, এভারবেস্টের দুটি জাহাজই আগামী সপ্তাহে চট্টগ্রাম থেকে পণ্য নিয়ে কলম্বো যেতে পারবে বলে পরিচালনাকারীরা আমাদের জানিয়েছেন।
এনামুল করিম বলছেন, রপ্তানি পণ্য দ্রুত জাহাজীকরণ নিশ্চিত করতে আজকে চেয়ারম্যান মহোদয় মায়ের্কস লাইনের কেন্দ্রীয় অফিসের সাথে জুম মিটিং করেছেন। সেখানে এই রুটে তাদের বাড়তি জাহাজ পরিচালনা এবং চীন হয়ে পণ্য জাহাজীকরনের বিষয়ে অগ্রগতি জানান।
কন্টেইনার ডিপো মালিকদের সংগঠন বিকডার হিসাবে, আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত ১৮টি কন্টেইনার ডিপোতে মোট ১৫ হাজার ৩১৪ একক রপ্তানি কন্টেইনার আছে। এর মধ্যে বেশিরভাগই চট্টগ্রাম বন্দর থেকে কলম্বো বন্দর হয়ে ইউরোপ-আমেরিকায় যাওয়ার কথা।
চট্টগ্রাম বন্দরের হিসাবে, ডিপোতে থাকা রপ্তানি কন্টেইনারের মধ্যে ৭০ শতাংশই মায়ের্কস লাইনের। মায়ের্কস লাইন কর্তৃপক্ষও গত সোমবার বন্দরের সাথে বৈঠকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে চট্টগ্রাম-কলম্বো রুটে মায়ের্কস লাইনের সহযোগি এমসিসি লাইনের নিজস্ব কোন জাহাজ পণ্য পরিবহনে নেই। চট্টগ্রাম বন্দরে তাদের যে ১২টি জাহাজ রয়েছে সবগুলোই সিঙ্গাপুর, পোর্ট কেলাঙ, তানজুম পেলিপাস এবং চীনের বন্দরের। কিন্তু সিঙ্গাপুর বন্দরে জাহাজজটের কারণে তাদেরই বেশিরভাগ কন্টেইনার জমে আছে। বাংলাদেশি গার্মেন্ট রপ্তানিকারকরা মায়ের্কস লাইন নির্ভরশীলতা বেশি থাকায় এখন বিপাকে পড়েছেন। এজন্য চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃূপক্ষ সিঙ্গাপুরের বদলে কলম্বো এবং বিকল্প বন্দর হয়েই পণ্য রপ্তানিতে বেশি জোর দিচ্ছেন। এরই অংশ হিসেবে নতুন চারটি জাহাজের চট্টগ্রাম-কলম্বো রুটে পরিচালনার অনুমতি মিললো।
দুটি জাহাজের অনুমতি পাওয়া মেডিটেরানিয়ান শিপিং কম্পানির আজমীর হোসাইন চৌধুরী বলছেন, খুব দ্রুতই আমরা দুটি ফিডার জাহাজ দিয়ে চট্টগ্রাম-কলম্বো রুটে পণ্য পরিবহন শুরু করবো। আশা করছি রপ্তানিমুখি কন্টেইনারজট দ্রুতই কমে আসবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *