খোলা পণ্যবাহি জাহাজ জেটিতে ভিড়তে সময় লাগছে ১২-২২ দিন; দিনে দিনেই ভিড়ছে চালবাহি জাহাজ

0
933

বিশেষ প্রতিনিধি

পুরণো জাহাজ ভাঙ্গা বা স্ক্র্যাপ পণ্যবাহি একটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে ভিড়তে বহির্নোঙরে ২০ দিন অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে। আর একটি সাধারন পণ্যবাহি জাহাজ জেটিতে ভিড়তে সময় লাগছে ১৯ দিন। খোলা পণ্যবাহি জাহাজ জেটিতে ভিড়তে যখন দিনের পর দিন অপেক্ষমান থাকতে হচ্ছে; পরিস্থিতি সামাল দিতে খোলা পণ্যবাহি জাহাজকে ড্রাইডক জেটিতে ভিড়ার অনুমতি দিচ্ছে বন্দর। এরপর পরিস্থিতি সামাল দেয়া যাচ্ছে না।

এই কঠিন অবস্থার মধ্যেই চালবাহি একটি জাহাজ বহির্নোঙরে আসার একদিন পরই জেটিতে ভিড়ছে। সরকারী চালবাহি জাহাজ ‘তোহিনা’ ২৯ মার্চ বন্দরের বহির্নোঙরে পৌঁছেছে; সেটি জেটিতে ভিড়েছে ৩১ মার্চ। অর্থ্যাৎ একদিন পরই সে জেটিতে ভিড়ার সুযোগ পাচ্ছে। ভোগ্যপণ্যবাহি জাহাজ অগ্রাধিকার তালিকায় থাকায় এই ধরনের জাহাজকে জেটিতে ভিড়তে অগ্রাধিকার দিচ্ছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দর পরিচালক (পরিবহন) এনামুল করিম শিপিং এক্সপ্রেসকে বলছেন, ভোগ্যপণ্যসহ বেশ কিছু জাহাজকে জেটিতে ভিড়তে অগ্রাধিকার তালিকায় রেখেছি; সেজন্য জেটি বরাদ্দ রয়েছে। ফলে সেসব জাহাজ প্রায় দিনে দিনেই অগ্রাধিকার পাচ্ছে। অন্য খোলা পণ্যবাহি জাহাজকে আমরা জেটি বরাদ্দ দিচ্ছি। এরফলে আগের তুলনায় বহির্নোঙরে জাহাজের অপেক্ষমান সময় অনেক কমে এসেছে।

এনামুল করিম বলছেন, স্ক্র্যাপ পণ্যবাহি জাহাজের অপেক্ষমান সময় একটু বেশি। আমরা সেটি আরো কমিয়ে আনার চেষ্টা করছি। এজন্য আগে থেকেই চট্টগ্রাম ড্রাইডক জেটি এবং নতুন করে কর্ণফুলী ড্রাইডক জেটি ব্যবহার শুরু করেছি। একইসাথে সদরঘাট লাইটার জেটিতে দ্রুত পণ্য খালাস নিশ্চিত করতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছি। আশা করছি সুফল মিলবে।

জানা গেছে, সরকারী চালবাহি তোহিনা জাহাজটি ভারতের কলকাতার হলদিয়া বন্দর থেকে বোঝাই করে চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছে ২৯ মার্চ। এর আগে অন্তত ২০টি খোলা পণ্যবাহি জাহাজ বহির্নোঙেরে অপেক্ষমান থাকলেও তারা জেটিতে ভিড়ার অনুমতি পায়নি। সরকারী চাল নিয়ে আসায় তোহিনা জাহাজটি জেটিতে ভিড়ার অনুমতি পেয়েছে।

বহির্নোঙরে অপেক্ষমান জাহাজের তালিকা যাচাই করে দেখা গেছে, স্ক্র্যাপ পণ্যবাহি জাহাজ ‘বা ট্যাঙ’ বহির্নোঙরে পৌঁছেছে ৯ মার্চ; ২২ দিন পর আজ ১ এপ্রিল জাহাজটি জেটিতে ভিড়তে পেরেছে। সাধারন পণ্য বোঝাই ‘লে লী’ জাহাজটি ১৮ মার্চ বহির্নোঙরে পৌঁছেছে; ১৩ দিন পর জেটিতে ভিড়তে পেরেছে আজ ১ এপ্রিল। গত ১৯ মার্চের পর বহির্নোঙরে পৌঁছা সব জাহাজই অলস বসে আছে; জেটিতে ভিড়ার অনুমতি পায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here