কুয়াশায় চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যবাহি জাহাজ প্রবেশ বন্ধ

0
858

বিশেষ প্রতিনিধি
বেশ কদিন ধরে ঘন কুয়াশায় চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে জাহাজ প্রবেশ বিঘ্নিত হচ্ছিল। এতে বহির্নোঙর থেকে একটি পণ্যবাহি জাহাজ জেটিতে চালিয়ে আনতে বন্দর পাইলটদের যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে চলতে হচ্ছিল; বাড়তি সময়ও লাগছিল। আজ শুক্রবার ভোরে সেই কুয়াশা চরম আকার ধারন করায় চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যবাহি কোন জাহাজ প্রবেশ করতে পারেনি। শুক্রবার অন্তত চারটি জাহাজ বন্দর জেটিতে প্রবেশের অনুমতি ছিল কিন্তু শেষমুহুর্তে তা বাতিল করা হয়। তবে বিকালে কুয়াশা কমে আসায় রপ্তানি পণ্য নিয়ে অন্তত চারটি জাহাজ বন্দর ছেড়ে যেতে পেরেছে।
জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দরের ডেপুটি কনজারভেটর ক‌্যাপ্টেন ফরিদুল আলম শিপিং এক্সপ্রেসকে বলছেন, জোয়ার-ভাটার সাথে মিল রেখে চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে জাহাজ আসা-যাওয়া করে। জোয়ারের কারণে এক সপ্তাহ ধরে জাহাজ চলাচলের সময় ভোর থেকে সকাল বেলায় করতে হচ্ছে। আর সেই সময়েই জাহাজ চলাচলের পথ বা চ্যানেল ঘন কুয়াশায় ঢেকে যাচ্ছে। আমাদের সব পাইলট নিয়মানুযায়ী যথাসময়ে উপস্থিত ছিল কিন্তু কুয়াশার কারণে বাধ্য হয়ে শুক্রবার আমরা জাহাজ জেটিতে প্রবেশ করাতে পারিনি। তবে বিকালে কুয়াশা কমে আসায় কয়েকটি জাহাজ বন্দর ছেড়ে যেতে পেরেছে। কুয়াশা কমে আসলে জাহাজ চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

জানা গেছে, প্রতি বছর এই সময় বন্দর চ্যানেল দিয়ে ঘন কুয়াশা ছড়িয়ে পড়ায় জাহাজ চলাচলে চরম ব্যাঘাত ঘটে। চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে জাহাজ আসা এবং যাওয়া পুরোপুরিভাবে জোয়ার-ভাটার পর নির্ভরশীল। সব শিডিউল তৈরী হয় জোয়ার এবং ভাটাকে কেন্দ্র করে। শীতকালে বিশেষ করে সকাল বা ভোর বেলায় যখন জাহাজ চলাচলের শিডিউল থাকে তখন এই সমস্যা প্রকট আকার ধারন করে। ফলে জাহাজগুলোকে একদিন বাড়তি জেটিতে বসে থাকতে হয়।

চট্টগ্রাম বন্দরের এক পাইলট বলছেন, এখানে আমাদের করণীয় কিছুই নেই। গত তিনদিন ধরেই আমরা কুয়াশার কারণ জাহাজ চলাচলে বিঘ্ন ঘটছিল। আমার জাহাজ থেকে একশ মিটার দুরের কোন জাহাজ দেখা যাচ্ছিল না।  এরপর ঝুঁকি নিয়ে আজ শুক্রবারও আমরা সবাই প্রস্তুত ছিলাম জাহাজ মুভমেন্ট করার জন্য কিন্তু শেষমুহুর্তে গিয়ে দেখা গেল শিডিউল বাতিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here