কাউকে না জানিয়েই ২৩ শতাংশ মাশুল বাড়ালো কন্টেইনার ডিপো মালিকরা

Dhaka Post Desk

বিশেষ প্রতিনিধি

20 January, 2022 19 Views

19

ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে বেসরকারী কন্টেইনার ডিপো মালিকরা হঠাৎ করেই ২৩ শতাংশ মাশুল বাড়িয়েছে। এই মাশুল বাড়ানোর আগে কন্টেইনার ডিপো ব্যবহারকারীরা কোন পক্ষের সাথে আলাপ করেনি ডিপো মালিকরা। গত ৪ নভেম্বর থেকে সেটি কার্যকরের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

এ নিয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন কন্টেইনার ডিপো ব্যবহারকারী ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার এসোসিয়েশন, গার্মেন্ট মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। তারা প্রশ্ন তুলেছেন গাড়ি ব্যবসায়ীরা যদি ভাড়া বাড়ানোর আগে সরকারের সাথে বসে আলােচনা করতে পারেন। বিকডা কারো সাথে আলাপ না করে ভাড়া বাড়ানোর দুঃসাহস দেখায় কেমনে?

বাফার সহসভাপতি খায়রুল আলম সুজন বলছেন, “আইসিডি নীতিমালা অনুযায়ী এককভাবে চার্জ বাড়ানোর কোন সুযোগ নেই। ডিপো ব্যবহারকারীদের সাথে বৈঠকে চার্জ বাড়ানোর সিন্ধান্ত নিতে হয়। কিন্তু বিকডা কারও সঙ্গে আলোচনা না করে এই সিদ্ধান্ত নেয়। ২৩ শতাংশ চার্জ বাড়ায় বিশেষ করে রপ্তানিকারকরা চরম আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হবে। উৎপাদন ব্যয় বেড়ে যাবে। এই সেক্টরে বিরূপ প্রভাব পড়বে।

কন্টেইনার ডিপো মালিকরা নিজেরাই ৯ নভেম্বর ভার্চুয়াল বৈঠক করে পাঁচ ধরনের সেবায় মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা দেয়; যেটি ৪ নভেম্বর থেকেই কার্যকরের ঘোষনা দেয়। এর ফলে প্রতিটি ২০ ফুট দৈর্ঘ্যের কন্টেইনারের পরিবহন চার্জ ৩০০ টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৪১৫ টাকা। ৪০ ফুট দৈর্ঘ্যের কন্টেইনার পরিবহন ৫৩০ টাকা বেড়ে ঠেকেছে দুই হাজার ৮৩০ টাকাতে। কন্টেইনার ওঠা-নামার চার্জ ৮০ টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে ৪২৫ টাকা।

আমদানি পণ্য কন্টেইনার থেকে খালাস চার্জ ১ হাজার ২৪ টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে নয় হাজার ৭৫৪ টাকা। ৪০ ফুট দৈর্ঘ্যের কন্টেইনার দুই হাজার পাঁচ টাকা বাড়িয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে ১১ হাজার ২৫৫ টাকা।

প্রতি ২০ ফুট দৈর্ঘ্যের রপ্তানি পণ্য কন্টেইনারে বোঝাই করতে এখন ৯৫২ টাকা অতিরিক্ত গুণে দিতে হবে পাঁচ হাজার ১৪০ টাকা। ৪০ ফুট দৈর্ঘ্যের কন্টেইনারের জন্য এই খরচ এক হাজার ২৭০ টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় হাজার ৭৯০ টাকাতে।

এছাড়া প্রতি ২০ ফুট এবং ৪০ ফুট কন্টেইনার ওজন মাপার মাশুলও বাড়িয়ে দিয়েছে এই সংস্থাটি। এক হাজার ১৫০ টাকার এই মাশুল এখন দিতে হবে বর্তমানে এক হাজার ৪১৫ টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, মূল্যবৃদ্ধির এই সিদ্ধান্তের নেতিবাচক প্রভাব পড়বে দেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম আরও বৃদ্ধি পাবে এই সিদ্ধান্তের কারণে।

বিকডা সভাপতি নুরুল কাইয়ুম খান বলেন, ডিজেলের দাম বাড়ার কারণে আইসিডির বিদ্যমান আর্থিক সংকট আরো বেড়ে গেছে। পণ্যবাহী গাড়ি ও আইসিডির বিভিন্ন ইকুইপমেন্টের জ্বালানি ব্যয় বেড়েছে। মূলত সেগুলো সমন্বয় করতে জ্বালানি সারচার্জ আরোপ করা হয়। যে চার্জ বাড়ানো হয়েছে তা অতিরিক্ত জ্বালানি ব্যয় সমন্বয়ে ব্যয় হবে। এছাড়া আইসিডি কোন ব্যয় বৃদ্ধি করেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *