ঈদের ছুটিতেও ডেলিভারি অর্ডার ইস্যুতে বন্দরের উদ্যোগ

বিশেষ প্রতিনিধি

ঈদের ছুটিতে চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজ থেকে পণ্য উঠানামা হলেও ডেলিভারি অনেক কম থাকে। এরফলে ঈদকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনারজট লেগে থাকে। প্রতিবছরই এমনটি হলেও বন্দর কর্তৃপক্ষ কোন উদ্যোগ নেয় না। এবার কন্টেইনার জট এড়াতে বেশ আগেভাগেই উদ্যোগ নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

এজন্য পণ্য ডেলিভারি নিতে বন্দর ব্যবহারকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ঈদের ছুটিতে সীমিত পরিসরে খোলা রাখার নির্দেশনা দিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে আছে, শিপিং লাইন, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট, ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার। এসব প্রতিষ্ঠান খোলা না থাকলে বন্দরের কার্যক্রম খোলা থাকলেও কোন সুফল মিলবে না। শুধু ঈদের ছুটি নয়, সাপ্তাহিক বন্ধের দিনগুলোতে এসব প্রতিষ্ঠান সীমিত পরিসরে খোলা রেখে ডেলিভারি অর্ডার (ডিও) ইস্যুর নির্দেশ দিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। এখন তাদের খোলা রাখার ওপর নির্ভর করছে সুফল।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের পরিবহন বিভাগের এক কর্মকর্তা বলছেন, বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম. শাহজাহান মহোদয়ের নির্দেশে ঈদের ছুটিতে সীমিত পরিসরে বন্দর ব্যবহারকারীদের অফিস চালু রাখতে উদ্যোগ নিয়েছি। গত ৫ মে এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যবহারকারীদের সাথে দীর্ঘ ফলপ্রসু বৈঠক হয়েছে। সেখানে সবাই সীমিত পরিসরে অফিস খােলা রাখার আশ্বাস দিয়েছেন; একইসাথে বিষয়টি তদারক করতে চারটি পৃথক কমিটি করা হয়েছে। ঈদে অফিস খোলা থাকলে এটি হবে প্রথম রেকর্ড।

ঈদের ছুটিতে বন্দরের কার্যক্রম সচল থাকলে ডেলিভারি অর্ডার ইস্যু করেন শিপিং লাইনগুলো। ফলে তাদের অফিস খোলা থাকাটা প্রথম দরকার। জানতে চাইলে শিপিং এজেন্ট এসোসিয়েশন সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ আরিফ বলছেন, বন্দরের অনুরোধে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবার শিপিং লাইনগুলোর অফিস সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে। ডেলভারি অর্ডারের কারণে বন্দর থেকে পণ্য ডেলভারিতে যাতে ব্যাঘাত না ঘটে সেজন্য পরিচালক মুনতাসির রুবাইয়াতকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছি।

জানা গেছে, ৬ মে’র বৈঠকে চট্টগ্রাম কাস্টমস, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশন, কন্টেইনার ডিপো এসোসিয়েশন, ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার এসোসিয়েশন একটি পৃথক কমিটি করে দিয়েছে বিষয়টি তদারক করার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *